fbpx

Terms & Conditions for the Merchant of Bongo Xpress

এই ডকুমেন্টটি ট্রাক মালিক/এজেন্সী/ ড্রাইভার এবং বঙ্গ এক্সপ্রেস এর সাথে সমঝোতা স্মারক ও চুক্তি পত্র হিসেবে গণ্য হবে।  উক্ত সমঝোতা স্মারকে উভয় পক্ষের দায়-দায়িত্ব, শর্তাবলী ও সুযোগ-সুবিধা সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে।  বঙ্গ এক্সপ্রেসের প্লাটফর্ম ব্যবহারের করলে ধরে নেয়া হবে যে,  ট্রাক মালিক/এজেন্সী/ ড্রাইভার এই ডকুমেন্টে উল্লেখিত সকল শর্তাবলী সঠিকভাবে মেনে চলার জন্য চুক্তিবদ্ধ।  উক্ত সমঝোতা স্মারকে উল্লেখিত ধারা, অনুচ্ছেদ ও শর্তাবলী সমূহ তৈরি করার, পরিবর্তন করার বা বর্জন করার  ক্ষমতা একমাত্র বঙ্গ এক্সপ্রেস ও তার মনোনীত কর্তৃপক্ষের।  বিভিন্ন সময় পরিবর্তন আসলে প্রথম পক্ষ অর্থাৎ বঙ্গ এক্সপ্রেস সেটি দ্বিতীয় পক্ষকে অবগত করবে, যেকোনো পরিবর্তন মানতে ট্রাক মালিক/এজেন্সী/ ড্রাইভার বাধ্য থাকবে।  উক্ত সমঝোতা স্মারকটি ২ রা ডিসেম্বর ২০২১ ইং তারিখে আপডেট করা হয়েছে।

"বঙ্গ এক্সপ্রেস" একটি অ্যাপ-ভিত্তিক লজিস্টিক প্ল্যাটফর্ম যা "বঙ্গ টেকনোলজি লিমিটেড" এর মালিকানাধীন এবং উক্ত কোম্পানির পরিচালকদের দ্বারা পরিচালিত। "বঙ্গ টেকনোলজি লিমিটেড" বাংলাদেশ কোম্পানি আইন- ১৯৯৪ এর অধীনে গঠিত ও পরিচালিত একটি প্রাইভেট কোম্পানি; কোম্পানি ইনকরপোরেশন রেজিস্ট্রেশন নং: সি -১৬৮৭১৮ (C-168718), ট্রেড লাইসেন্স: 417938, বিজনেস আইডেন্টিফিকেশন নং: 003973989-0102, বিজনেস টিআইএন নং: ৫৬০১৭৯৪৮২২৪৩ (560179482243), ইক্যাব (ECAB) মেম্বারশিপ আইডি: ১৬০২। কর্পোরেট অফিস এর ঠিকানা- বাসা ৬৯ (ফ্ল্যাট এ ৩), রোড ০৭, সেক্টর ০৪, উত্তরা ইস্ট, ঢাকা-১২৩০।  

বঙ্গ এক্সপ্রেস একটি টেকনোলজি নির্ভর লজিস্টিক কোম্পানি , উক্ত কোম্পানিটি অ্যাপ ভিত্তিক লজিস্টিক সার্ভিস প্রদান করে থাকে যার মধ্যে অনলাইন ট্রাক রেন্টাল সার্ভিস অন্যতম।  অনলাইন ট্রাক রেন্টাল সার্ভিস প্রদানের জন্য উক্ত কোম্পানি ট্রাকের মালিক ও তার ড্রাইভারের এর সাথে কাস্টমারের যোগাযোগ স্থাপন ও ট্রিপ তৈরির জন্য একটি মাধ্যম হিসেবে কাজ করবে।  বঙ্গ এক্সপ্রেস তার প্লাটফর্মে ট্রাক মালিক/ এজেন্সি / এজেন্সি ও তার ড্রাইভার এর জন্য ট্রিপ তৈরী করবে, এক্ষেত্রে বঙ্গ এক্সপ্রেসের কাস্টমারকে সেবা দানের জন্য ট্রাক মালিক/ এজেন্সি  তার ট্রাক ও ড্রাইভার যেহেতু যুক্ত করবে উক্ত প্লাটফর্মে সেহেতু কোম্পানির সাথে ট্রাক মালিকের সমঝোতা স্মারক থাকা আইনগতভাবে বাঞ্চনীয়।

এক্ষেত্রে উল্লেখ্য যে, ট্রাক মালিক/ এজেন্সি রা ট্রিপের জন্য ন্যায্য ভাড়া বঙ্গ এক্সপ্রেসের কাস্টমার থেকে পেয়ে যাবে এবং কোম্পানির প্লাটফর্ম (মোবাইল অ্যাপ) ব্যবহারের জন্য উক্ত কোম্পানিকে নির্দিষ্ট হারে কমিশন প্রদান করতে বাধ্য থাকবে।

সমঝোতা স্মারকের মধ্যে প্রবেশের আরো একটি অন্যতম উদ্দেশ্য হল ট্রাক মালিক/ এজেন্সি ও তার ড্রাইভার কোম্পানির শর্তাবলী ও নিয়মাবলী মেনে চলতে স্বীকৃতি প্রদান করবে, এছাড়াও নিম্নোক্ত উপায়ে উভয় পক্ষের ব্যবসায়িক স্বার্থ রক্ষার্থে সমঝোতা স্মারক দলিল হিসেবে কাজ করবে।

ক) ট্রাকের মালিক তার ট্রাক এবং ড্রাইভার পরিচালনার জন্য বঙ্গ এক্সপ্রেসের এর প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করবে এবং কাস্টমার (যাদের পরিবহন প্রয়োজন) এর চাহিদা অনুযায়ী অন-ডিমান্ড বা চুক্তির ভিত্তিতে উক্ত প্লাটফর্ম ব্যবহার করে পরিবহন সেবা অথবা ট্রিপ সরবরাহ করবে।  

খ) ট্রাক ও তার ড্রাইভার পরিচালনার দায়িত্ব গাড়ির মালিকের দখলে থাকবে। বঙ্গ এক্সপ্রেসের প্লাটফর্মে রেজিস্টার্ড কোনো যানবাহনের মালিকানা ও পরিচালনার দায়িত্ব কোনোভাবেই কোম্পানির থাকবে না। বরং বঙ্গ এক্সপ্রেসের প্লাটফর্ম ট্রাক মালিক/ এজেন্সি দেরকে তাদের কাস্টমারের সাথে অনলাইনে সংযুক্ত করবে যেখানে কাস্টমারের ট্রিপ বা পরিবহন চাহিদার জন্য ট্রাক মালিকের গাড়ি ও ড্রাইভার স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিযুক্ত হবে।

গ) এই চুক্তিটি উপরে উল্লিখিত তারিখে শুরু হবে এবং শেষ না হওয়া পর্যন্ত কার্যকর থাকবে৷ ট্রাক মালিক/ এজেন্সি  বঙ্গ এক্সপ্রেসের প্লাটফর্ম  ব্যবহার করা বন্ধ করে দিলে এবং চুক্তি অনুযায়ী লেনদেন সম্পন্ন করে শেষ করলে এই চুক্তিটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে  বাতিল হয়ে যাবে।  তাছাড়া প্রথম পক্ষ চাইলেই যেকোনো সময়ে দ্বিতীয় পক্ষকে  চুক্তি বাতিলের নোটিশ দিতে পারে। এক্ষেত্রে উল্লেখ্য যে,  শর্তাবলী অমান্য ও নিয়ম ভঙ্গের কারণে দ্বিতীয় পক্ষ (ট্রাক মালিক/ এজেন্সি )-কে যেকেনো মুহূর্তে প্রথম পক্ষ মৌখিক নোটিশের মাধ্যমে ও এই চুক্তিটি বাতিলের ঘোষণা দিতে পারে।

) ট্রিপ/পরিবহন সেবা সরবরাহ সংক্রান্ত শর্তাদি:

১)  ট্রাক মালিক/ এজেন্সি অবশ্যই কাস্টমার বা বঙ্গ এক্সপ্রেসের ট্রিপ প্রয়োজনীয়তা অনুযায়ী পরিবহন সরবরাহ করতে হবে।

২) ট্রিপ ড্রাইভার অ্যাপে স্বয়ংক্রিয়ভাবে আসবে, ড্রাইভার যদি ট্রিপ একসেপ্ট (Accept) বা গ্রহণ না করে, তাহলে উক্ত ট্রিপের জন্য ট্রাক মালিক/ এজেন্সি নিজেই ম্যানুয়াল প্রক্রিয়ায় পার্টনার অ্যাপ (যদি বরাদ্দকৃত থাকে) থেকে ড্রাইভারকে অ্যাসাইন করবে।

৩) আপনার (ট্রাক মালিক/ এজেন্সি) ড্রাইভার যদি কোন ট্রিপ গ্রহণ করতে অস্বীকার করে এবং পর পর তিন (৩) বারের বেশি বাতিল (Decline) করে, তাহলে বঙ্গ এক্সপ্রেস তার ট্রিপ পাওয়ার সুবিধা ব্লক করতে পারে অথবা ড্রাইভারের অ্যাকাউন্ট ব্লক রাখতে পারে। এক্ষেত্রে গাড়ির মালিক বঙ্গ এক্সপ্রেসের সাপোর্ট টিমের সাথে যোগাযোগ করে যথাযথ কারণ ব্যাখ্যা করতে পারলে ব্লক বা এই ধরণের নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হবে এবং ড্রাইভার অ্যাকাউন্টটি চালু করে দেয়া হবে। 

৪) বঙ্গ এক্সপ্রেস প্লাটফর্মে ট্রিপ পাওয়ার মাধ্যমে পরিবহন সেবা নিশ্চিতকল্পে কাস্টমারের সাথে ট্রাক মালিক/ এজেন্সি ও তার ড্রাইভার সংযুক্ত হয়ে গেলে ট্রিপটি সম্পন্ন করা পর্যন্ত সমস্ত দায়ভার ট্রাক মালিকের। ট্রাক মালিক/ এজেন্সি এবং তার ড্রাইভার কাস্টমারের প্রয়োজনীয়তা অনুযায়ী সার্ভিস প্রদানের জন্য দায়বদ্ধ থাকবে। কাস্টমারের কাছ থেকে কোন অনিয়ম ও অসদাচরণের অভিযোগ পেলে বঙ্গ এক্সপ্রেস কর্তৃপক্ষ যথাযথ ব্যবস্থা নিতে পারবে এমনকি চুক্তি ও বাতিল করতে পারে।    

) লেবার ম্যানেজমেন্ট অন্যান্য সেবা সংক্রান্ত শর্তাদি:

১) ট্রিপের প্রয়োজনীয়তা অনুযায়ী পরিবহন সেবা প্রদানের পাশাপাশি পণ্যের লোডিং- আনলোডিং এর জন্য অন্যান্য সহায়তা (যেমন-লেবার, হেল্পার, মেশিন ইনস্টলার, হ্যান্ডিম্যান, ইলেকট্রিশিয়ান ইত্যাদি) ট্রাক মালিক/এজেন্সী কাস্টমারকে প্রদান করতে হবে।

২) বঙ্গ এক্সপ্রেসের লেবার চার্জ ও পলিসি - এর সাথে একমত হলে কাস্টমার ট্রিপের সাথে যত জন লেবার সিলেক্ট করে ট্রাক মালিক/ এজেন্সি তত জন লেবার সরবরাহ করতে বাধ্য থাকবে। এই ধরণের সহায়তার ব্যবস্থা করার কোন দায়বদ্ধতা বঙ্গ এক্সপ্রেসের নেই।

৩) বঙ্গ এক্সপ্রেস লেবার চার্জ ও অন্যান্য সহায়তার মূল্য নির্ধারণ করবে যা কাস্টমার থেকে সগ্রহের পর ট্রাক মালিক/ এজেন্সি পেয়ে যাবে। লেবারদের ম্যানেজ করা ও তাদের পারিশ্রমিক দেয়ার দায়িত্ব একান্তই ট্রাক মালিকের। বঙ্গ এক্সপ্রেস ট্রিপ ও লেবার চার্জ সহ সকল চার্জ নির্ধারণের ক্ষমতা রাখে ।   এক্ষেত্রে উল্লেখ্য যে, ট্রিপের ভাড়া বা ডেলিভারি চার্জের সাথে লেবার চার্জ সংযুক্ত থাকবে। 

*ট্রিপের ভাড়া বা ডেলিভারি চার্জ ব্যতীত অতিরিক্ত কোনো প্রকারের অর্থ কাস্টমারের কাছে দাবি করা যাবেনা, এরূপ অভিযোগ প্রমাণিত হলে বঙ্গ এক্সপ্রেস কর্তৃপক্ষ যথাযথ ব্যবস্থা নিতে পারবে।   

৪)  বঙ্গ এক্সপ্রেস প্লাটফর্ম ব্যবহার করে ট্রাক মালিক/ এজেন্সি তার নিজস্ব কাস্টমারকে   কোন ট্রিপ/পরিবহন সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে ফ্রী লেবার সরবরাহ করতে পারে;

এক্ষেত্রে বঙ্গ এক্সপ্রেস ট্রাক মালিকের এইরূপ সিদ্ধান্তের জন্য দায়ী থাকবে না, বরং ট্রাক মালিকের পক্ষ হয়ে বঙ্গ এক্সপ্রেস কাস্টমারের কাছে অফারটি প্রচার করবে। আবার, যদি কোম্পানি কাস্টমারের জন্য এমন কোন ডিসকাউন্ট বা অফার প্রদান করে তাহলে ট্রাক মালিকের সাথে পারস্পরিক আলোচনার ভিত্তিতে এই ধরণের অফারের মূল্য/চার্জ নির্ধারণ করা হবে।

৫) বঙ্গ এক্সপ্রেস এর প্ল্যাটফর্মটি ব্যবহার করে লেবার ও অন্যান্য সেবা প্রদানের জন্য ট্রাক মালিকের কাছ থেকে নির্দিষ্ট হারে কমিশন নেয়া হবে।

৬) কোন ট্রিপের লোড ও আনলোডের জন্য যদি কোনো বিশেষ সরঞ্জামের প্রয়োজন হয় তবে কাস্টমারের সাথে সমঝোতার ভিত্তিতে সেটি পিকআপ ও ডেলিভারি পয়েন্টে সরবরাহ করা ট্রাক মালিকের দায়িত্ব হিসেবে বিবেচিত হবে। 

) তথ্যের-উপাত্তের ভ্যালিডিটি সংক্রান্ত শর্তাদি:

১) কোম্পানিতে ট্রাকের মালিক (পরিবহন পার্টনার হিসেবে) নিবন্ধনের সময় তার গাড়ি ও ড্রাইভার সম্পর্কিত সকল তথ্য সঠিকভাবে জমা দিতে হবে, এবং গাড়ি ও ড্রাইভারের লাইসেন্স ও যাবতীয় নথিপত্রের বৈধতা নিশ্চিত করতে হবে ট্রাক মালিক/ এজেন্সি কে।

২) ট্রাক মালিক/ এজেন্সি ও তার ড্রাইভার কর্তৃক প্রদানকৃত কোন তথ্য মিথ্যা, জাল বা নকল বলে প্রমাণিত হলে কোম্পানি দায়বদ্ধ থাকবে না। বরং কোম্পানির সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এই ধরনের জালিয়াতির বিরুদ্ধে অবিলম্বে বাংলাদেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতে পারবে। 

৩) পার্টনার অ্যাপ বা ড্রাইভার অ্যাপে ট্রাক মালিক/ এজেন্সি যদি তার ব্যবসা, ট্রাক বা ড্রাইভার সম্পর্কিত কোনো তথ্য পরিবর্তন করতে চায় তাহলে তাকে অবশ্যই কোম্পানির সাপোর্ট টিমকে জানাতে হবে এবং সেই অনুযায়ী সাপোর্ট টিম আপডেট করে দিবে। উল্লেখ্য যে, নিরাপত্তার স্বার্থে অবশ্যই সাপোর্ট টিমকে প্রয়োজনীয় প্রমাণাদি দাখিল করতে হবে। 

 

) দায়বদ্ধতা লস ম্যানেজমেন্ট শর্তাদি:

১) ট্রিপ চলাকালীন সময়ে যেকোন দুর্ঘটনায় মালামালের ক্ষতি হলে বা ক্ষতি পূরণের দায়-দায়িত্বের জন্য এককভাবে ট্রাক মালিক/ এজেন্সি দায়ী থাকবে। এতে বঙ্গ এক্সপ্রেস কোন প্রকারের দায়ভার গ্রহণ করবে না। 

২) ট্রাক পরিবহন, ট্রাক ড্রাইভার ও সড়ক নিরাপত্তা সংক্রান্ত স্থানীয় নিয়মকানুন ও বাংলাদেশে প্রচলিত সকল আইন মেনে চলতে হবে; আইন লঙ্ঘনের জন্য ট্রাক মালিক/ এজেন্সি ও তার ড্রাইভার সম্পূর্ণরূপে দায়ী থাকবে। 

৩) কাস্টমার ও কোন ইউজারকে বিরক্ত করতে বা কোন ব্যক্তিগত প্রতিহিংসার প্রতিশোধ নেয়ার জন্য বঙ্গ এক্সপ্রেসের প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করা যাবে না।

৪) কাস্টমারের সাথে ড্রাইভারের অসদাচরণ বা ড্রাইভার যদি কাস্টমারের কোন ক্ষতি সাধন করে তার সমস্ত দায়ভার ট্রাক মালিক/ এজেন্সি বহন করবে। এই ধরণের কোন কর্মকান্ড প্রমাণিত হলে বঙ্গ এক্সপ্রেস অভিযুক্ত ড্রাইভার বা ট্রাক মালিকের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে পারবে। 

৫) বঙ্গ এক্সপ্রেসের কাস্টমারের কাছে প্রতিযোগী কোম্পানির কোন সার্ভিস ও অ্যাপ্লিকেশন প্রচার করা, কুপন দেওয়া এবং অন্য কোনো ধরনের ডিসকাউন্ট বা অফারের পরামর্শ দেওয়া নিষিদ্ধ।ই ধরণের কোন কর্মকান্ড প্রমাণিত হলে বঙ্গ এক্সপ্রেস অভিযুক্ত ড্রাইভার বা ট্রাক মালিকের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নিবে।

৬) ট্রাক মালিক/ এজেন্সি ও তার ড্রাইভারকে অবশ্যই স্থানীয় ট্রাক মালিক/ এজেন্সি সমিতি, পরিবহন চালক এবং শ্রমিক ইউনিয়ন, স্থানীয় প্রশাসন এবং কোম্পানির এজেন্ট (বঙ্গ বণিক/সার্ভিস পয়েন্ট) এর সাথেও ভালো সম্পর্ক বজায় রাখতে হবে।

৭) ট্রাক মালিক/ এজেন্সি ও তার ড্রাইভার অবশ্যই BRTA নির্দেশিকা অনুযায়ী যানবাহন এবং ট্রাফিক নিয়ম সম্পর্কে ড্রাইভারদের মধ্যে সচেতনতা তৈরি করতে কাজ করবে।  

৮) ট্রাক ও ট্রাক ড্রাইভার সংক্রান্ত যেকোনো ধরনের সমস্যার জন্য ট্রাক মালিক/ এজেন্সি সম্পূর্ণরূপে দায়ী থাকবে।

৯) ট্রিপ তৈরির ক্ষেত্রে ট্রাক মালিক/ এজেন্সী বা তার ড্রাইভার পিকআপ ও ডেলিভারির ঠিকানা সম্পৰ্কে ভুল তথ্য দিলে তার দায়ভার কোম্পানি নিবে না, বরং ট্রাক মালিক/ এজেন্সী বা তার ড্রাইভার দেয় থাকবে। এবং ভুল ঠিকানা প্রদানের জন্য ভাড়া বা অন্য কোন ধরণের সমস্যা দেখা দিলে তাতে বঙ্গ এক্সপ্রেসের কোনো প্রকারের দায়ভার থাকবেনা। 

১০) কাস্টমারের মালামাল সঠিকভাবে ডেলিভারি করতে হবে এবং পিকআপ ও ডেলিভারিতে অ্যাপের নিয়ম অনুযায়ী পিকআপ ও ডেলিভারির প্রমান হিসেবে মালামালের ছবি, প্রেরক ও প্রাপকের ডিজিটাল স্বাক্ষর ইত্যাদি সঠিভাবে দাখিল করতে হবে। 

১১) ট্রিপ তৈরির সময় লোডিং ও আনলোডিং পয়েন্টের মোবাইল নম্বর সঠিক ভাবে দাখিল করতে হবে। 

১২) ট্রাক মালিক/এজেন্সী ও তার অধীনস্ত ড্রাইভারদেরকে বঙ্গ এক্সপ্রেসের সহযোগিতা নিয়ে অ্যাপের ট্রেনিং সম্পন্ন করে ট্রিপের জন্য চূড়ান্ত অনুমুতি নিতে হবে। ড্রাইভারদেরকে অ্যাপ ট্রেনিং ব্যতীত কোন ট্রিপ প্রদান করা যাবে না।

১৩) বঙ্গ এক্সপ্রেস অ্যাপের ওয়ার্কফ্লোও না বুঝে কোন প্রকার ভুল ট্রিপ তৈরী করলে তার দায়ভার সম্পূর্ণভাবে ট্রাক মালিক/এজেন্সী ও তার অধীনস্ত ড্রাইভারের উপর বর্তাবে। 

১৪) মাসিক চুক্তির ভিত্তিতে বঙ্গ এক্সপ্রেসের মাধ্যমে কোন ইন্ডাস্ট্রি লেভেলের কাস্টমারকে (বা প্রতিষ্ঠানকে) ট্রাক ভাড়া বা পরিবহন সেবা প্রদানের জন্য ট্রাক মালিক/এজেন্সী চুক্তিবদ্ধ হলে উক্ত কাস্টমারক (বা প্রতিষ্ঠান)-এর কমপ্লায়েন্স বা নিয়ম কানুকে অনুযায়ী সেবা দিতে হবে। অন্যথায় এরূপ কাস্টমারক (বা প্রতিষ্ঠান)-এর রিপোর্ট অনুযায়ী ড্রাইভারের খারাপ পারফরম্যান্স পরিলক্ষিত হলে তার সম্পূর্ণ দায়ভার ট্রাক মালিক/এজেন্সী ও তার ড্রাইভারকে নিতে হবে।

১৫) ট্রিপ চলাকালীন সময়ে ট্রানজিট টাইমে যদি ড্রাইভার প্রয়োজনের অতিরিক্ত সময় ব্যয় করে তার জন্য ড্রাইভার কে জবাবদিহি করতে হবে এবং একই সাথে তার দায়ভার ট্রাক মালিক ও এজেন্সী নিতে বাধ্য থাকবে। প্রাইস চার্ট এ উল্লিখিত ওয়েটিং টাইম (বা লোডিং/আনলোডিং সময়) ব্যতীত অতিরিক্ত প্রতিটি সময়ের জন্য জবাবদিহি করতে হবে। 

১) অন-ডিমান্ড ট্রিপের ক্ষেত্রে ট্রিপ সফলভাবে সম্পন্ন করে ড্রাইভার বা ট্রাক মালিক/ এজেন্সি কাস্টমারের কাছ থেকে ট্রিপের ভাড়া সংগ্রহ করবে এবং নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে বঙ্গ এক্সপ্রেস এর অনুমোদিত কর্মীর কাছে কোম্পানির প্রাপ্য কমিশন পরিশোধ করবে। অথবা বঙ্গ এক্সপ্রেসের উল্লেখিত নিয়ম অনুসারে ডিজিটাল পদ্ধতিতে অর্থাৎ মোবাইল ব্যাংকিং বা ওয়ালেটের মাধ্যমে কমিশন পরিশোধ করতে হবে। 

বিকাশ মার্চেন্ট একাউন্ট নম্বর: 01322813550

২) বিশেষ কাস্টমার বা ইন্ডাস্ট্রি লেভেলের কাস্টমারের চুক্তি ভিত্তিক ট্রিপের ক্ষেত্রে বঙ্গ এক্সপ্রেস চুক্তি অনুযায়ী দৈনিক, সাপ্তাহিক বা মাসিক ভিত্তিতে ট্রিপের ভাড়া বা পেমেন্ট সংগ্রহ করবে; এবং একইভাবে কোম্পানির কমিশন রেখে বাকি পেমেন্ট ট্রাকের মালিককে ট্রিপের মূল্য হিসেবে পরিশোধ করবে। সুতরাং এক্ষেত্রে, ট্রিপের মূল্য মাসিক ভিত্তিতে কোম্পানি ট্রাক মালিক/এজেন্সী -কে পরিশোধ করবে।  চুক্তিভিত্তিক কাস্টমারের বিলিং সাইকেল অনুযায়ী পেমেন্ট প্রদান করা হবে , যদি কাস্টমার পেমেন্ট দিতে বিলম্ব করে স্বাভাবিকভাবে ট্রাক মালিক/এজেন্সী-এর পেমেন্ট পরিশোধে বিলম্ব হবে। 

৩) ট্রিপ ভাড়া মোবাইল অ্যাপে স্বয়ংক্রিয়ভাবে (এবং তাৎক্ষণিকভাবে) গণনা করা হবে যা গাড়ির আকার, পণ্যের ওজন, পণ্যের ধরন, পিকআপ থেকে ডেলিভারি পয়েন্টের দূরত্ব (প্রতি কিলোমিটার হিসেবে), লেবারের সংখ্যা, ট্রাফিকের অবস্থা ইত্যাদি বিষয়ের উপর নির্ভর করে নির্ধারিত এমনকি পরিবর্তিত হতে পারে। রোড ট্যাক্স, ট্রল, পার্কিং ইত্যাদি ভাড়ার অন্তর্ভুক্ত নয়, সেগুলো মালিককে পরিশোধ করতে হবে। 

৪) ট্রাক মালিক/ এজেন্সি ট্রিপের ভাড়ার বাইরে অতিরিক্ত খরচ যেমন রোড ট্যাক্স, ট্রল, পার্কিং, চাঁদা, রুট খরচ ইত্যাদি দিতে দায়বদ্ধ থাকবে।

৫) ট্রাক মালিক/ এজেন্সি তার ড্রাইভারকে পরিচালনা করা ও বেতন পরিশোধের জন্য দায়বদ্ধ থাকবে। বঙ্গ এক্সপ্রেস কর্তৃপক্ষ চাইলে তাদের নিজস্ব বিবেচনায় ড্রাইভারের জন্য ট্রিপ টার্গেট প্রদান করবে এবং টার্গেট পূরণ করতে পারলে ড্রাইভারকে অতিরিক্ত প্রণোদনা বা কমিশন বা অন্যান্য সুবিধা প্রদান করবে। কোম্পানির পক্ষ থেকে ড্রাইভারকে প্রদানকৃত সুযোগ সুবিধা গাড়ির মালিককে অবহিত করতে পারে আবার নাও করতে পারে তার সিদ্ধান্ত কোম্পানি এককভাবে নিতে পারবে। 

৬)  ট্রাক মালিক/ এজেন্সি তার নিজের ট্রিপের আয়ের ট্যাক্স/ভ্যাট (জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এর অধীনে সার্ভিস ক্যাটাগরি অনুযায়ী) পরিশোধের জন্য দায়ী থাকবে।

৭) প্রতিদিনের ট্রিপের চাহিদা ও ট্রাক সাপ্লাই নিয়ে ট্রাক মালিক/ এজেন্সি বঙ্গ এক্সপ্রেসের কর্তৃপক্ষকে রিপোর্ট করবে যাতে প্রয়োজনে বিভিন্ন প্যারামিটার অনুযায়ী সারচার্জ নির্ধারণ করতে পারে। 

৮) ট্রাকের ভাড়া (অন-ডিমান্ড) নিম্নোক্ত ভাবে হিসেব করা হবে: -

  • ঢাকা, গাজিপুর, নারায়ণগঞ্জ, শহর/জেলা (ট্রিপের দূরত্ব ২০ কিঃমিঃ পর্যন্ত) এর জন্য প্রযোজ্য

ট্রাকের ধরন এবং সাইজ

বেইজ ভাড়া

(টাকা)

বেইজ দূরত্ব

(কিলোমিটার)

প্রতি কিলোমিটারে ভাড়া

লোডিং এর জন্য বরাদ্দ সময়

আনলোডিং এর জন্য বরাদ্দ সময়

লোডিং এর সময় পার হলে প্রতি মিনিটের জন্য অতিরিক্ত চার্জ

১ টনের খোলা ট্রাক (৭ ফিট)

৩৮০

৩৫

৬০

মিনিট ফ্রি

৩০

মিনিট ফ্রি

৪ টাকা

১ টনের কভার ভ্যান (৭ ফিট)

৪৫০

৩৮

৬০

মিনিট ফ্রি

৩০

মিনিট ফ্রি

৪ টাকা

১.৫ টনের খোলা ট্রাক (৯ ফিট)

৬০০

৪২

৭৫ মিনিট ফ্রি

৪৫

মিনিট ফ্রি

৫ টাকা

১.৫ টনের কভার্ ভ্যান (৯ ফিট)

৬৮০

৪৫

৭৫ মিনিট ফ্রি

৪৫

মিনিট ফ্রি

৫ টাকা

২ টনের খোলা ট্রাক (১২ ফিট)

৮০০

৫০

৯০ মিনিট ফ্রি

৬০ মিনিট ফ্রি

৫ টাকা

২ টনের কভার ভ্যান (১২ ফিট)

৯০০

৫২

৯০ মিনিট ফ্রি

৬০ মিনিট ফ্রি

৫ টাকা

 

 

 

  • বাহিরের এলাকা গুলোর জন্য প্রযোজ্য (দীর্ঘ দূরত্বের ট্রিপ বা ট্রিপের দূরত্ব ২০ কিঃমিঃ এর অধিক হলে)

ট্রাকের ধরন এবং সাইজ

বেইজ ভাড়া

(টাকা)

বেইজ দূরত্ব

(কিলোমিটার)

প্রতি কিলোমিটারে ভাড়া

লোডিং এর জন্য বরাদ্দ সময়

আনলোডিং এর জন্য বরাদ্দ সময়

লোডিং এর সময় পার হলে প্রতি মিনিটের জন্য অতিরিক্ত চার্জ

১ টনের খোলা ট্রাক (৭X৪X৫) ফিট

৩৮০

২০

৬০

মিনিট ফ্রি

৩০

মিনিট ফ্রি

৪ টাকা

১ টনের কভার ভ্যান (৭X৪X৫) ফিট

৪৫০

২১

৬০

মিনিট ফ্রি

৩০

মিনিট ফ্রি

৪ টাকা

১.৫ টনের খোলা ট্রাক (৯ ফিট)

৬০০

২৩

৭৫ মিনিট ফ্রি

৪৫

মিনিট ফ্রি

৫ টাকা

১.৫ টনের কভার্ ভ্যান (৯ ফিট)

৬৮০

২৪

৭৫ মিনিট ফ্রি

৪৫

মিনিট ফ্রি

৫ টাকা

২ টনের খোলা ট্রাক (১২ ফিট)

৮০০

২৪

৯০ মিনিট ফ্রি

৬০ মিনিট ফ্রি

৫ টাকা

২ টনের কভার ভ্যান (১২ ফিট)

৯০০

২৫

৯০ মিনিট ফ্রি

৬০ মিনিট ফ্রি

৫ টাকা

 

প্রাইসিং লজিক কিভাবে কাজ করে:

ড্রাইভার পিকআপ পয়েন্টে পৌঁছে "arrived" অপশনে স্লাইড করে কাস্টমারের কাছ থেকে OTP নিয়ে ড্রাইভার অ্যাপে প্রবেশ করবে, তাহলে পিকআপের ভাড়া ৩৮০ টাকা (বেইজ ফেয়ার) গণনা হবে। “arrive" এর সময় থেকে পিকআপ "successful" হওয়ার আগ পর্যন্ত লোডিং এর সময় হিসেবে রেকর্ড করা হবে। ডেলিভারির উদ্দেশ্যে "start" করার ১ কিঃমিঃ দূরত্বের পর অর্থাৎ দ্বিতীয় কিঃমিঃ থেকে প্রতি কিঃমিঃ চার্জ বেইজ ফেয়ারের সাথে যুক্ত হবে, যেহেতু বেইজ ফেয়ারের সাথে ফ্রি ১ কিঃমিঃ বেইজ দূরত্ব। 

ট্রিপ সম্পন্ন করার পর বঙ্গ এক্সপ্রেস পাইলট (ড্রাইভার) অ্যাপে সাইড মেনুবারের "Earnings" অপশনে পিকআপ ও ডেলিভারির ভাড়ার গণনা আলাদা আলাদাভাবে দেখানো হবে; ড্রাইভার পিকআপ ও ডেলিভারির ভাড়াকে যোগ করে সর্বমোট ভাড়া কাস্টমার থেকে সংগ্রহ করবে। এছাড়া সর্বমোট ভাড়া ওয়ে-বিল (ডিজিটাল বিল) এর "Earnings" এ উল্লেখ থাকবে যা ড্রাইভার অ্যাপ ও কাস্টমার অ্যাপ থেকে ডাউনলোড করা যাবে। 

 

ভাড়া গণনার উদাহরণ:

স্বয়ংক্রিয়ভাবে অ্যাপে কিভাবে ভাড়া গণনা বা নির্ধারিত হবে তার ধারণা নিম্নোক্ত উদাহরণের মাধ্যমে বুঝে নিন

ধরুন, আপনি ঢাকার উত্তরা থেকে যাত্রাবাড়ী ২৫ কিঃমিঃ এর একটা ট্রিপ গ্রহণ করেছেন। ধরে নিচ্ছি, আপনার ট্রাকের ধরণ হল ১ টন খোলা ট্রাক। 

আমরা জানি, ১ টন খোলা ট্রাকের বেইজ ভাড়া (প্রথম ১ কিঃমিঃ) ৩৮০ টাকা এবং দ্বিতীয় কিলোমিটার থেকে প্রতি কিঃমিঃ ভাড়া ৩৫ টাকা।

সুতরাং, ২৫ কিঃমিঃ ট্রিপের জন্য ভাড়া হবে = ৩৮০টাকা (১কিঃমিঃ বেইজ ভাড়া) + ২৪ কিঃমিঃ X ৩৫ টাকা (প্রতি কিঃমিঃ ভাড়া)

                                                                  =   ৩৮০ (১কিঃমিঃ বেইজ ভাড়া) + ৮৪০ টাকা                                               

                                             সর্বমোট ভাড়া = ১২২০ টাকা

বি. দ্র.:

১) বঙ্গ এক্সপ্রেসের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ট্রিপের ভাড়া পরিবর্তন হতে পারে।

২) সারচার্জ: রাস্তার ট্রাফিক অবস্থা, ট্রাকের চাহিদা ও যোগানের উপর ভিত্ত্বি করে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভাড়া বাড়তে পারে। বেইজ ফেয়ার (base fare), প্রতি কিঃমিঃ ভাড়া (distance fare), অথবা বেইজ ওয়েটিং টাইম (base waiting time)- এর উপর ১০ থেকে ২০% মূল ভাড়ার সাথে সারচার্জ সংযোজন করা হবে। বঙ্গ এক্সপ্রেসের কর্তৃপক্ষ সারচার্জ নির্ধারণ করবে। উক্ত অতিরিক্ত ভাড়া ট্রাক মালিক উপভোগ করবে।

৩) ট্রাক মালিক/এজেন্সী ও তার ড্রাইভার সার্জ চার্জের বিষয়ে কাস্টমারকে সবসময় অবহিত করতে দায়বদ্ধ থাকবে।

৪) কাস্টমার (লাস্টমাইল কাস্টমার বা প্রাপক) চাইলে যেকোন সময়ে তাকে ডিজিটাল বিল প্রদান   করতে ট্রাক মালিক/এজেন্সী ও তার ড্রাইভার বাধ্য থাকবে। 

৫) বঙ্গ এক্সপ্রেসের প্রতিযোগী কোম্পানি বা তার প্রতিনিধিকে বঙ্গ এক্সপ্রেসের ডেলিভারি চার্জ (উপরে উল্লিখিত) সম্পর্কে কোন প্রকার তথ্য প্রদান করতে পারবে না। 

 

কাস্টমার থেকে ভাড়া আদায়ের পদ্ধতি:

  • সফলভাবে ট্রিপটি সম্পন্ন করার পর বঙ্গ এক্সপ্রেস পাইলট অ্যাপের বাম পাশের সাইড মেনুবারের "Earnings" অপশন থেকে উক্ত ট্রিপের ফাইনাল ভাড়া দেখে নিন এবং কাস্টমার থেকে ক্যাশে (নগদ) ভাড়া সংগ্রহ করুন।

বিশেষ নোট:

বঙ্গ এক্সপ্রেস পাইলট (ড্রাইভার) অ্যাপে সাইড মেনুবারের "Earnings" অপশনে পিকআপ ও ডেলিভারির ভাড়ার গণনা আলাদা আলাদাভাবে দেখানো হবে; ড্রাইভার পিকআপ ও ডেলিভারির ভাড়াকে যোগ করে সর্বমোট ভাড়া কাস্টমার থেকে সংগ্রহ করবে। এছাড়া সর্বমোট ভাড়া ওয়ে-বিল (ডিজিটাল বিল) এর "Earnings" এ উল্লেখ থাকবে যা ড্রাইভার অ্যাপ ও কাস্টমার অ্যাপ থেকে ডাউনলোড করা যাবে। 

  • ট্রিপ সম্পন্ন করার সময় থেকে পরবর্তী কর্ম দিবসের মধ্যে বঙ্গ এক্সপ্রেস এর মার্চেন্ট বিকাশ নম্বরে নির্ধারিত কমিশন পরিশোধ করুন। অথবা আপনার নিকটস্থ বঙ্গ এক্সপ্রেস সার্ভিস পয়েন্টে কমিশন পরিশোধ করে ওয়ালেটে রিচার্জ আপডেট করে নিন।

 

ট্রাক মালিক/ এজেন্সী থেকে বঙ্গ এক্সপ্রেস- কমিশন ফী:

ট্রিপের ভাড়ার ধাপ

কমিশন

১০০০ টাকা পর্যন্ত

৫০ টাকা

১০০১ থেকে ২০০০ টাকা পর্যন্ত

১০০ টাকা

২০০১ থেকে ৩০০০ টাকা পর্যন্ত

১৫০ টাকা

৩০০১ থেকে ৪০০০ টাকা পর্যন্ত

২০০ টাকা

৪০০০ এর অধিক

ভাড়ার ৭.৫ শতাংশ

 

বি. দ্র.:

১) উক্ত কমিশন চার্ট যেকোনো সময় বঙ্গ এক্সপ্রেসের কর্তৃপক্ষ পরিবর্তন, পরিমার্জন বা বাতিল করার ক্ষমতা রাখে। 

২) ট্রিপ গ্রহণ করার পরে যদি ড্রাইভার বা মালিক ট্রিপটি বাতিল করে তবে ট্রিপের কমিশন কোম্পানিকে দিতে হবে।

৩) ট্রিপ গ্রহণ করার জন্য ড্রাইভারকে তার অ্যাপের ওয়ালেট সেকশনে সর্বনিম্নে ২৫০ টাকা অগ্রিম টাকা (কমিশনের জন্য) রাখতে হবে। অন্যথায় উক্ত ড্রাইভার/মালিক ট্রিপ পাবে না। 

৪) কোম্পানির নির্ধারিত মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাকাউন্ট বা ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ছাড়া অন্যকোন মাধ্যমে বা কারো ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্টে কোন প্রকারের লেনদেনের করা যাবে না। যদি করে তাহলে তার জন্য বঙ্গ এক্সপ্রেস দায়ী থাকবে না। 

৫) কমিশনের অগ্রিম পেমেন্ট পরিশোধ করে ট্রাক মালিক/এজেন্সী বা তার ড্রাইভার অবশ্যই কোম্পানি প্রতিনিধি অথবা নিকটস্থ বঙ্গ এক্সপ্রেস সার্ভিস পয়েন্ট থেকে মানি রিসিট (ক্যাশ মেমো) প্রমান বুঝে নিবে। 

৬) ড্রাইভার ওয়ালেট আপডেট ও রিচার্জের জন্য অ্যাপ থেকে “Chat with us" অপশনে সরাসরি আমাদের কাস্টমার সাপোর্ট টিমকে জানিয়ে দিতে পারেন এবং সেই অনুযায়ী আমাদের সাপোর্ট টিম ওয়ালেট আপডেট করে দিবে। 

১) গাড়ির মালিক তাদের ড্রাইভারদের পরিচালনা করবে এবং প্রয়োজনে পার্টনার অ্যাপ নির্দিষ্ট ট্রিপের জন্য অ্যাসাইন করে দিবে (এক্ষেত্রে শর্ত প্রযোজ্য), এছাড়াও বঙ্গ এক্সপ্রেসের কর্তৃপক্ষ ড্রাইভারদের অ্যাসাইন করতে পারে এবং গতিবিধি ট্রাক করতে পারবে।

২) গাড়ির মালিক তাদের ড্রাইভারদের প্রাপ্য (বেতন বা কমিশন বা বিবিধ) প্রদান করবে; এবং বঙ্গ এক্সপ্রেস তাদের নিজস্ব নীতি/পরিকল্পনা অনুযায়ী চালকদেরকে প্রণোদনা বা কমিশন বা অন্যান্য সুবিধা প্রদান করবে।

৩) ড্রাইভার/কাস্টমার গাড়িতে বিপজ্জনক বা নিষিদ্ধ পণ্য বহন করছে কিনা তা নজরদারিতে রাখতে হবে এবং তার দায়ভার ট্রাক মালিক/ এজেন্সি ও তার ড্রাইভারকে নিতে হবে। নিষিদ্ধ পণ্য বহন ও ডেলিভারি করছে এরকম অভিযোগ প্রমান হলে কোম্পানির কোন দায়ভার থাকবেনা, বরং কোম্পানি নিজেই আইনানুগ ব্যবস্থা নিবে উক্ত ট্রাক মালিক/ এজেন্সি ও তার ড্রাইভারের অনিয়মের বিরুদ্ধে। 

৪) আইন প্রয়োগকারী সংস্থার নিকট এধরণের নিষিদ্ধ পণ্য পরিবহনের অভিযোগ প্রমাণিত হলে তার দায়ভার বঙ্গ এক্সপ্রেসের উপর বর্তাবে না। বরং এধরণের কেইসের সমস্ত দায়ভার ট্রাক মালিক/এজেন্সী বা তার ড্রাইভারের নিজের। 

৫) প্রতিটি ট্রিপের শুরুতে ড্রাইভারকে অবশ্যই গাড়িটি পরীক্ষা করতে হবে। ড্রাইভার যদি গাড়ির বা এর যন্ত্রাংশের কোনো ক্ষতি বা ত্রুটি লক্ষ্য করেন, তাহলে অবশ্যই গাড়ির মালিককে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব জানাতে হবে এবং ট্রিপ শেষ করার ২৪ ঘণ্টার ভেতর বঙ্গ এক্সপ্রেস-কে জানাতে হবে। তবে গাড়ির কোনো ক্ষয়ক্ষতি হলে তার মেইন্টেনেন্সের জন্য কোম্পানি দায়বদ্ধ থাকবেনা। 

৬) ট্রাক মালিক/এজেন্সীকে অবশ্যই তার ড্রাইভারকে ভালোভাবে নির্দেশনা দিতে হবে যাতে ড্রাইভার ট্রিপের লোড বা আনলোড করার সময় কাস্টমারের মালামাল ভালোভাবে দেখে নেয় এবং অ্যাপের মাধ্যমে পিকআপ ও ডেলিভারির প্রমান হিসেবে ছবি তুলে আপলোড দেয়। 

এক্ষেত্রে, ড্রাইভার যদি পিকআপের সময় কোন প্রকার নিষিদ্ধ বা অবৈধ পণ্যের আলামত পায় তাহলে তৎক্ষনাত ট্রিপ বর্জন করে এবং আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে জানাবে। আইন প্রয়োগকারী সংস্থার নিকট কোনো প্রকারের ভুল তথ্য দেয়া যাবে না বা কোনো তথ্য গোপন করা যাবেনা। 

৭) গাড়ির মালিককে অবশ্যই তার ড্রাইভার গাড়ির এবং ড্রাইভারদের জন্য প্রযোজ্য সমস্ত আইন সহ সরকারি সকল নিষেধাজ্ঞা মেনে চলে কিনা তা অবশ্যই তদারকি করতে হবে৷ সরকারি নির্দেশনা অমান্য করলে তার দায়ভার ট্রাক মালিক/এজেন্সী ও তার ড্রাইভারের উপর বর্তাবে।

১) গাড়ির মালিকানা বা পরিচালনার দায়িত্ব গাড়ির মালিকের। সুতরাং কোনো ট্রিপের চাহিদা অনুযায়ী গাড়ি ব্যবস্থা করা ট্রাক মালিকের দায়িত্ব। 

২) গাড়ির মালিক তার গ্যারেজ বা স্ট্যান্ড-এ গাড়ি পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণ করবেন; গাড়ির ব্যবস্থাপনার জন্য বঙ্গ এক্সপ্রেস দায়ী থাকবে না।

৩) স্ট্যান্ড বা গ্যারেজ ফি গাড়ির মালিক বা তার চালক দ্বারা পরিশোধ করতে হবে।

৪) গাড়ির মালিক আমাদের প্ল্যাটফর্মে তার ড্রাইভারের সাথে তার গাড়ি যোগ করবেন; ট্রাক মালিক/ এজেন্সি এবং বঙ্গ এক্সপ্রেস উভয়ই ক্লায়েন্ট বা কাস্টমারের প্রয়োজনের অনুযায়ী ট্রাক বা ড্রাইভারকে নিযুক্ত করতে পারে (ম্যানুয়াল বা স্বয়ংক্রিয় প্রক্রিয়ায়) ।

৫) প্রতিটি ট্রিপ শেষে ড্রাইভারকে অবশ্যই গাড়িটি গাড়ির মালিকের গ্যারেজ বা স্ট্যান্ডে ফেরত দিতে হবে অথবা ট্রাক মালিকের নির্দেশনা অনুযায়ী গাড়ি ও ড্রাইভার অবস্থান করবে।

৬) গাড়ির অভ্যন্তরীণ এবং বাহ্যিক অংশ অবশ্যই সঠিকভাবে পরিষ্কার হতে হবে।

বঙ্গ এক্সপ্রেস পাইলট অ্যাপ শুধু মাত্র ট্রাকের ড্রাইভার ব্যবহার করবে এবং ট্রিপ গ্রহণ ও সম্পন্নের জন্য ড্রাইভার নিম্নোক্ত ধাপ গুলো অনুসরণ করবে।  ড্রাইভারের মোবাইল ফোনে বঙ্গ এক্সপ্রেস পাইলট অ্যাপ অ্যাক্টিভ না থাকলে বা  ট্রিপ সম্পন্নের জন্য নিম্নোক্ত পদ্ধতি অনুসরণ না করলে ট্রিপের সঠিক ভাড়া আসবেনা এবং তার জন্য বঙ্গ এক্সপ্রেস দায়ী থাকবেনা। 

১) ড্রাইভার অ্যাপের সাইড মেনুবারে "Duty" অপশন সবসময় "On" রাখুন।

২) ট্রিপ নোটিফিকেশন পেলে পিকআপ-ডেলিভারি ডিটেইলস এবং ভাড়া দেখে "Accept" অপশনে ক্লিক করে ট্রিপটি গ্রহণ করুন। 

৩) "start" অপশনে স্লাইড করে পিকআপ (লোডিং) লোকেশনের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করুন

৪) পিকআপ (লোডিং) লোকেশনে পৌঁছে "arrive" অপশনে স্লাইড করুন এবং কাস্টমার থেকে OTP সংগ্রহ করুন। ট্রাকের ধরণ অনুযায়ী লোডিং ও আনলোডিং এর জন্য নির্ধারিত ফ্রী সময় সম্পর্কে কাস্টমারকে অবহিত (অনুরোধ) করুন, কেননা ফ্রী সময় উত্তীর্ণ হলে পরবর্তী প্রতি মিনিটে ওয়েটিং চার্জ মূল ভাড়ার সাথে সংযুক্ত হবে এবং তা কাস্টমারকেই পরিশোধ করতে হবে। 

৫) লোডিং সম্পন্ন করে পিকআপ লোকেশন থেকে ডেলিভারি লোকেশনের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরুর পূর্বে মালামাল লোডিংয়ের ছবিও চালান পত্রের ছবি (যদি থাকে) ড্রাইভার অ্যাপে আপলোড করতে হবে, এবং পিকআপ কাস্টমারের ডিজিটাল স্বাক্ষর নিতে হবে, তারপর “successful" অপশনে স্লাইড করে নিন । সাথে সাথে পিকআপ কাস্টমারকে রেটিং দিন এবং প্রয়োজনে আপনার মতামত "review" অপশনে লিখে দিন। ডেলিভারি লোকেশনের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করুন । 

মনে রাখতে হবে, পিকআপের কাস্টমার আপনাকে (ড্রাইভার হিসেবে) রেটিং দিতে পারে, সুতরাং আপনার দায়িত্ব হবে সর্বোত্তম সেবা দিয়ে কাস্টমারের সন্তুষ্টি অর্জন করা এবং কাস্টমার কে ভালো রেটিং দেয়ার জন্য অনুরোধ করা। আরো মনে রাখতে হবে যে, ড্রাইভারের রেটিং পয়েন্ট কমে গেলে ট্রিপের পরিমান কমে যাবে  

৬) পিকআপ সফল ভাবে সম্পন্ন করে "start" অপশন স্লাইড করে ডেলিভারি লোকেশনের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করুন। 

৭) ডেলিভারি লোকেশনে পৌঁছে একইভাবে "arrive" অপশনে স্লাইড করুন এবং কাস্টমার থেকে OTP সংগ্রহ করুন। দ্রুত আনলোডিং সম্পন্নের এর জন্য কাস্টমারকে অনুরোধ করেন যেহেতু লোডিং ও আনলোডিং এর জন্য নির্ধারিত ফ্রী সময় রয়েছে এবং যা উত্তীর্ণ হলে পরবর্তী প্রতি মিনিটে চার্জ মূল ভাড়ার সাথে সংযুক্ত হবে অর্থাৎ ভাড়া বেড়ে যাবে। 

৮) মালামাল আনলোডিং এর ছবি ও চালান পত্রের ছবি (যদি থাকে) ড্রাইভার অ্যাপে আপলোড করে করতে হবে, এবংডেলিভারি কাস্টমারের ডিজিটাল স্বাক্ষর নিতে হবে, তারপর “successful" অপশনে স্লাইড করে দিন। । সাথে সাথে কাস্টমারকে রেটিং দিতে হবে এবং প্রয়োজনে আপনার মতামত "review" অপশনে লিখে দিতে পারেন। উক্ত ধাপ সমূহ সম্পন্ন হলে ট্রিপটি সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে বলে গণ্য হবে। 

রেটিং প্রদানের ক্ষেত্রে মনে রাখতে হবে, ডেলিভারি পয়েন্টের কাস্টমার ও আপনাকে (ড্রাইভার হিসেবে) রেটিং দিতে পারে , সুতরাং আপনার দায়িত্ব হবে সর্বোত্তম সেবা দিয়ে কাস্টমারের সন্তুষ্টি অর্জন করা এবং কাস্টমার কে ভালো রেটিং দেয়ার জন্য অনুরোধ করা। আরো মনে রাখতে হবে যে, ড্রাইভারের রেটিং পয়েন্ট কমে গেলে ট্রিপের পরিমান ও কমে যাবে। 

৯) বঙ্গ এক্সপ্রেস পাইলট (ড্রাইভার) অ্যাপের "Earnings" অপশন থেকে ভাড়া দেখে তা কাস্টমারকে জানিয়ে দিন এবং ভাড়া ক্যাশে (নগদ) সংগ্রহ করুন।

১০) ডেলিভারি পয়েন্টের কাস্টমার যদি ট্রিপের ডিজিটাল বিল দেখতে চায়, তাহলে সাইড-মেনুবারের "History" অপশনে গিয়ে সম্পন্ন হওয়া ট্রিপটি সিলেক্ট করে "Export Trip" এ ক্লিক করে বিল ডাউনলোড করে নিন এবং হোয়াটস অ্যাপ (WhatsApp) অথবা ইমেইল এর মাধ্যমে কাস্টমারকে বিলটি পাঠিয়ে দিন। 

যে সমস্ত মালিকের এক বা তার অধিক গাড়ি রয়েছে এবং মালিক তার ড্রাইভারদেরকে ট্রিপের জন্য নিযুক্ত করে তারা বঙ্গ এক্সপ্রেস পার্টনার অ্যাপ ব্যবহার করবে। ট্রাকের মালিককে পার্টনার অ্যাপ ব্যবহারের জন্য বঙ্গ এক্সপ্রেসের অনুমতি নিতে হবে। 

১) পার্টনার অ্যাপের হোমস্ক্রিনে ট্রিপ আসলে "unassigned" অপশনে ক্লিক করলে ট্রিপের বিস্তারিত (যেমন- পিকআপ/ডেলিভারি লোকেশন, ট্রিপের ভাড়া, ট্রিপ সম্পন্নের সম্ভাব্য সময় ইত্যাদি) দেখে নিতে পারেন। ট্রিপের বাম পাশে "Assign Bongo Pilot" অপশনে ক্লিক করে ট্রিপে উল্লেখিত ট্রাকের ধরণ এবং সাইজ অনুযায়ী আপনার ড্রাইভারকে অ্যাসাইন করে করে দিন 

২) উক্ত ট্রিপের জন্য অ্যাসাইনকৃত ড্রাইভারকে বাদ দিয়ে আরেকজন ড্রাইভারকে পুনরায় অ্যাসাইন করতে পারেন। সেক্ষেত্রে ট্রিপটি সিলেক্ট করে অ্যাপের উপরের ডান কোনায় (Assigned এর পাশে) ক্লিক করলে Reassign Bongo Pilot অপশনটি সিলেক্ট করতে হবে, তারপর আপনার ড্রাইভারের লিস্ট দেখা যাবে সেখান থেকে যাকে অ্যাসাইন করতে চান তাকে সিলেক্ট করে নিলেই পুনরায় অন্য আরেকজন ড্রাইভারকে অ্যাসাইন করা সম্পন্ন হয়ে যাবে। 

৩)  ড্রাইভার ডিউটি অন রেখে ট্রিপটি গ্রহণ করেছে কিনা সেটি খেয়াল রাখতে হবে।

৪) পরবর্তীতে ট্রিপ ও ড্রাইভারকে সার্বক্ষণিক ট্র্যাক করতে পারেন। 

বি: দ্র: সফলভাবে ট্রিপ সম্পন্নের পর কাস্টমারের কাছ থেকে ভাড়া কালেকশনের দায়িত্ব সম্পূর্ণ ট্রাক মালিক ও তার ড্রাইভারের। ট্রাক মালিক ও ড্রাইভার জরুরি অবস্থায় বঙ্গ এক্সপ্রেসের সাপোর্ট টিমের পরামর্শ নিতে পারে।   

ট্রাক মালিক ও ড্রাইভারকে বঙ্গ এক্সপ্রেসের অ্যাপ সমূহের (Bongo Xpress Pilot App, Bongo Xpress Partner App) ব্যবহার শিখানোর জন্য ট্রেনিং দিতে বঙ্গ এক্সপ্রেসের কর্তৃপক্ষ বদ্ধ পরিকর। 

ট্রাক মালিকের একের অধিক ট্রাক থাকলে সেগুলো ট্র্যাকিং করার জন্য পার্টনার অ্যাপ ব্যবহার করতে পারে। পার্টনার অ্যাপ ব্যবহারকারী ট্রাক মালিক/এজেন্সী প্রতি মাসে ২৫০ টাকা পার্টনার অ্যাপ ব্যবহারের চার্জ হিসেবে  বঙ্গ এক্সপ্রেসকে পরিশোধ করবে এবং সর্বোচ্চ ৫টি ট্রাক সংযুক্ত করতে পারবে। এছাড়া ফিচারের উপর ভিত্তি করে নিম্নোক্ত চার্ট অনুযায়ী চার্জ গণনা করা হবে। 

বঙ্গ এক্সপ্রেস পার্টনার অ্যাপ ও ফ্লিট ট্র্যাকিং সল্যুশন এর মাসিক সাবস্ক্রিপশন

প্যাকেজ

বিএক্স লাইট (BX Lite)

বিএক্স রেগুলার (BX Regular)

বিএক্স স্মার্ট 
(BX Smart)

বিএক্স প্রিমিয়াম
 
(BX Premium)

মাসিক

সাবস্ক্রিপশন ফি

২৫০

৪০০

৭৫০

১০০০

গাড়ির সংখ্যা ও

ড্রাইভার অ্যাপ

৩-৫

৬-১০

১১-২০

২০+

রিয়েল টাইম

ট্র্যাকিং

নিজে নিজে

 ট্রিপ ক্রিয়েট করা

লাইভ

ট্র্যাকিং

ট্রিপ এর

 বিবরণ

দেখা

ড্রাইভার

 যোগ করা

ড্রাইভার ব্লক ও ডিলিট করা

ড্যাশবোর্ড

ট্রিপ বন্টন

করে দেওয়া

 

বঙ্গ এক্সপ্রেস পার্টনার অ্যাপ ও ফ্লিট ট্র্যাকিং সল্যুশন এর মাসিক সাবস্ক্রিপশন

প্যাকেজ

বিএক্স লাইট (BX Lite)

বিএক্স রেগুলার (BX Regular)

বিএক্স স্মার্ট 
(BX Smart)

বিএক্স প্রিমিয়াম
 
(BX Premium)

ট্রিপ এডিট করা/ভুল সংশোধন করা

ডেইলি ট্রিপ ও

রিটার্নর্  ট্রিপ

করপোরেট/

কোম্পানি ট্রিপ

ড্রাইভার দের

সাথে অডিও কল

ড্রাইভারদের

সাথে ভিডিও কল

এরিয়া ভিত্তিক

 ট্রিপ

লাইভ চ্যাট

বঙ্গ এক্সপ্রেস ও ড্রাইভারদের সাথে

এককালীন

 ইন্সটলেশন ফি

১৫০

২০০

৫০০

৫০০

অ্যাপ

মেনটেনেন্স ফি

ফ্রি

ফ্রি

ফ্রি

ফ্রি

কাস্টমার

 সার্ভিস ও

ডেডিকেটেড পি.ও.সি

১২ ঘন্টা সরাসরি/এপ কল

১২ ঘন্টা সরাসরি/এপ কল

২৪/৭ ঘন্টা

 কল+পি.ও.সি

২৪/৭ ঘন্টা

কল+পি.ও.সি

 

* উপরোক্ত মাসিক সাবস্ক্রিপশন ফী দিতে ব্যর্থ হলে অ্যাপ ও ড্যাশবোর্ড বন্ধ থাকবে এবং কোন প্রকার ট্রিপ ও সার্ভিস পাবে না। 

ট্রাক বা গাড়ির মালিক (কোম্পানির পরিবহন পার্টনার হিসেবে চুক্তিবদ্ধ হলে)বঙ্গ এক্সপ্রেস সম্পর্কিত বা কোম্পানি থেকে প্রাপ্ত যেকোনো ধরণের তথ্য- যেমন: সার্ভিস সমূহ, টেকনোলজি (মোবাইল অ্যাপ), ব্যবসায়িক শর্তাবলী, মার্কেটিং স্ট্রাটেজি, পার্টনারশিপ সমঝোতা স্মারকের বিষয় বস্তু, প্রচার পরিকল্পনা বা অন্যান্য  ক্রিয়াকলাপ সম্পর্কে বঙ্গ এক্সপ্রেসের প্রতিযোগী কোনো প্রতিষ্ঠানকে প্রকাশ করা কঠোরভাবে নিষিদ্ধ।  এছাড়া বঙ্গ এক্সপ্রেসের ব্যবসায়ে বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে বা কোন প্রকারের ক্ষতিসাধন হতে পারে এমন কোন তথ্যের গোপনীয়তা রক্ষা করা গাড়ির মালিকের একান্ত নৈতিক দায়িত্ব।

ব্যবসায়িক প্রয়োজনে বা কাজের খাতিরে এই ধরনের তথ্য শুধুমাত্র কোম্পানির কর্মকর্তা, কর্মচারী এবং এজেন্টদের কাছে প্রকাশ করতে পারবে। ট্রাক মালিক/ এজেন্সি গোপনীয়তা রক্ষা করতে ব্যর্থ হলে কোম্পানি তার বিরুদ্ধে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে পারবে।   

* ট্রাক মালিক/এজেন্সী ও তার পরিবহন ও ড্রাইভারের তথ্য দেশের আইন প্রয়োগকারী সংস্থার নিকট হস্তান্তরের পূর্ণ স্বাধীনতা বঙ্গ এক্সপ্রেসের রয়েছে। 

উক্ত সমঝোতা স্মারকে উভয়পক্ষ সম্মতি জানাচ্ছে যে, এই চুক্তিপত্রে উল্লেখিত কোনো গোপনীয় তথ্যের ব্যবহার বা প্রকাশ করা থেকে বিরত থাকবে, যদি চুক্তিপত্রের কোনো ধারা অমান্য করা হয় তাহলে বাংলাদেশে প্রচলিত আইন ব্যবস্থা অনুযায়ী অভিযুক্ত পক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। কোম্পানি গোপনীয় তথ্যের অননুমোদিত ব্যবহার বা প্রকাশের বিরুদ্ধে ন্যায়সঙ্গত বা আদেশমূলক বিচার পাওয়ার অধিকারী হবে। কোম্পানী এই ধরনের লঙ্ঘনের ফলে সৃষ্ট প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষ উভয় ক্ষতির জন্য, আইনগতভাবে অনুমোদিত প্রতিকার পাওয়ার অধিকারী হবে। এই ধারার অধীনে কোম্পানি কোনো পদক্ষেপ নিলে, অভিযুক্ত ব্যক্তির কাছ থেকে তার অ্যাটর্নির ফি এবং খরচ পুনরুদ্ধার করার অধিকারী হবে।

এই চুক্তি লিখিতভাবে উভয়পক্ষের অনুমোদিত প্রতিনিধিদের পারস্পরিক সমঝোতার ভিত্তিতে পরিবর্তিত ও সংশোধিত হবে। উভয়পক্ষের পারস্পরিক সম্মতির লিখিত দলিল (Mutual Agreement) না পাওয়া গেলে এই সমঝোতা স্মারক চুক্তিতে কোন প্রকারের পরিবর্তন বা সংশোধন কার্যকর হবে না।

ট্রাক মালিক/ এজেন্সি ও তার ড্রাইভার যতদিন বঙ্গ এক্সপ্রেসের প্লাটফর্ম ব্যবহার করবে ততদিন উল্লেখিত চুক্তিপত্রটি বলবৎ থাকবে। উভয়পক্ষের ব্যবসায়িক স্বার্থকে প্রাধান্য দিয়ে এবং কাস্টমারের চাহিদা যোগান দিতে প্রয়োজন অনুযায়ী বিভিন্ন ধারা যুক্ত হতে পারে এবং বাদ দেয়া হতে পারে যা একান্তভাবে বঙ্গ এক্সপ্রেস পরিবর্তন করার ক্ষমতা রাখে। 

Smartest logistics solutions are now just one-click away!

Download our app on your smartphone and share with your community about your experience.

USER APP

PILOT APP

PARTNER APP

Leveraging the experience of e-commerce customers with simple but sophisticated technology which helps the businesses to adopt digitization at its best with automation in distribution as well.

Copyright © 2021 Bongo Xpress. All rights reserved.
Logos & Images are the Trademarks of their respective brands.